in

আইফোন ১১ নিয়ে যত জল্পনা কল্পনা

আ্যাপলের পরবর্তী ফোনের নাম কী হতে যাচ্ছে? আইফোন ১১? আইফোন ১১ হাতে পাওয়ার জন্য আমাদেরকে অপেক্ষা করতে হতে পারে এ বছরের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত। ফোনের বাজারে ২০১৯ হতে যাচ্ছে নাটকীয় একটি বছর, পাশাপাশি ফোনের ধারণা পাল্টে দেবার বছর। আমরা আছি ৫জি নেটওয়ার্কের সূচনালগ্নে, যা পরবর্তী প্রজন্মের সেলুলার প্রযুক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। ৫জি নেটওয়ার্কে আমরা পেতে যাচ্ছি যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক উচ্চগতির নেটওয়ার্কিং সুবিধা।

তাছাড়া ভাঁজ করা ফোনের বাজারে চলে আসার বিষয়টিও ইতোমধ্যে নিশ্চিত হয়ে গেছে। আর উন্নত ক্যামেরা প্রযুক্তির ফোন তো আমরা চোখের সামনেই দেখতে পাচ্ছি। কোনটিতে পাঁচটি লেন্স! কোনটি ৪৮ মেগাপিক্সেল!  কোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে উচ্চ রেজোলিউশন ইমেজিং পদ্ধতি।

আইফোন; Image Source: CNET

আর আমরা যতদূর জানি, পরবর্তী প্রজন্মের আইফোনে ৫জি কিংবা ভাঁজ করা পর্দার কোনটিই থাকছে না। ফোনের বাজারে বড় বড় খেলুড়ে ফোন কোম্পানিগুলো যখন ৫জি কিংবা ভাঁজ করা পর্দার ফোন নিয়ে মাতামাতি করছে সেখানে আ্যাপল হয়তো ২০২০ সালের আগে এ প্রতিযোগিতায় যুক্ত হচ্ছে না। কোম্পানিটি এখনও সম্পূর্ণভাবে তার  লাইনআপে ওএলইডি (OLED) ডিসপ্লে আনতে কাজ করে যাচ্ছে। ভাঁজ করা পর্দার ফোন নিয়ে আসার ব্যাপারে আ্যাপলের কোনো আগ্রহই প্রকাশ পাচ্ছে না।

নতুন আইফোনে লেজার গাইডেন্স (রোবটিক্স মাধ্যমে আলোর সাহায্যে কোনো বস্তুকে চিহ্নিত করা), এআর-রেডি (উন্নত কৃত্রিম বাস্তবতা), থ্রি-ডি ক্যামেরার সাথে ফেস আইডি সমন্বিত করার বিষয়ে কানাঘুষো চলছে। তবে কেউ কেউ মনে করছেন যে, নতুন আইফোনে কেবল ক্যামেরার মানে পরিবর্তন আসবে।

তবে, এটি যেহেতু অ্যাপল। যেকোনো সময়ই যেকোনো ফিচার সংযুক্তির সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। ২০১৮ সালের শেষদিকে কর্মক্ষমতা হ্রাসের লক্ষণ সত্ত্বেও, গত বছর জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরে অ্যাপল প্রায় ৫০ মিলিয়ন ফোন বিক্রি থেকে ৩৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার উপার্জন করেছে। আইফোন অ্যাপলের মতো একটি ব্রান্ডের প্রিমিয়াম পণ্য। সেক্ষেত্রে আমরা আসন্ন আইফোন ১১ তে দৃষ্টিনন্দন, আকর্ষণীয় ফিচারের জন্য অপেক্ষা করতেই পারি।

স্যামসাংয়ের ভাঁজ করা ডিসপ্লের ফোন; Image Source: CNET

বর্তমানে বিভিন্ন ফোন ও কোম্পানি নিয়ে বিশ্লেষক, পণ্ডিত এবং বিভিন্ন সময়ে তথ্য ফাঁসকারী প্রতিষ্ঠানের অভাব নেই। ইতোমধ্যে আইফোন ১১ এর বিষয়ে একটি ছোটখাটো গুজব পুরো অনলাইন দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। গত ১০ জানুয়ারি, বিশিষ্ট তথ্য ফাঁসকারী বেন গেসকিন (Ben Geskin) নতুন আইফোনের ব্যাপারে তার ব্যক্তিগত পছন্দনীয় ফিচার নিয়ে টুইট করেছেন। এগুলোর মধ্যে রয়েছে প্রো-মোশন ডিসপ্লে, ৩টি ক্যামেরা, ৪,০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, তারবিহীন চার্জিং।

আর এই টুইটটি অনুসরণ করে আসন্ন আইফোন ১১ এর ফিচার নিয়ে ইন্টারনেটে অনেক আর্টিকেল লেখা হয়ে গেছে। তবে এসবের প্রায় সবগুলোই ছিল উড়ো কথা। অবশেষে, ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়েছে, সংশোধন করা হয়েছে ঐসব আর্টিকেলের ভুল তথ্য। আমাদের কাছে আইফোন ১১ বিষয়ে খুব বেশি তথ্য নেই, কেননা আ্যাপল আনুষ্ঠানিকভাবে তেমন কিছুই জানায়নি। এই লেখায় আইফোন ১১ তে কী থাকছে, দাম কেমন হতে পারে এ নিয়ে যত আপাত সত্য, যত গুজব কিংবা উড়ো কথা আছে ঐসব নিয়ে আলোচনা করবো।

১. ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে বাজারে আসছে তিনটি নতুন মডেলের আইফোন

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের তথ্যানুযায়ী, সাম্প্রতিক বছরগুলোর মতো আ্যাপল এবারও আইফোন ১১ এর তিনটি নতুন সংস্করণ নিয়ে আসছে। একটি সংস্করণ হবে আইফোন এক্সআর (iPhone XR) এর মতো বাজেট ফোন, অপরটি আইফোন এক্সএস (iPhone XS) এর পদাঙ্ক অনুসরণ করে মিডরেঞ্জ ফ্লাগশিপধারী। আরেকটি সংস্করণ হবে আইফোন এক্সএস ম্যাক্স (iPhone XS Max)এর মতো বড় সাইজের। যদিও গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল মার্চে আ্যাপল তাদের নতুন সংস্করণের আইফোন ১১ নিয়ে তাদের অনুষ্ঠান আয়োজন করতে যাচ্ছে, তবে এ সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। কেননা, অ্যাপল সেপ্টেম্বরে নতুন ফোন রিলিজের চিরাচরিত নিয়মের ব্যত্যয় করবে বলে মনে হয় না।

গতবছর অ্যাপল তাদের ৩টি ফোনের ঘোষণা দিয়েছিল সেপ্টেম্বর মাসের ১৩ তারিখ। আর এর মধ্যে আইফোন এক্সএস এবং এক্সএস ম্যাক্স রিলিজ হয় ২১ সেপ্টেম্বর আর এক্সআর আসে পরবর্তী মাসে অর্থাৎ অক্টোবরের ২৬ তারিখ। আমরা আশা করছি এবছরও সেপ্টেম্বরে নতুন আইফোন ১১ নিয়ে আসতে যাচ্ছে আ্যাপল, যদি না নতুন ফিচারের জন্য কিছুটা দেরি হয়।

২. সম্ভবত, আইফোন ১১ তে ফাইভ-জি (5G) থাকছে না

তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তিতে ফাইভ জির অন্তর্ভুক্তি নিঃসন্দেহে একটি বৈপ্লবিক পরিবর্তন। তবে মনে হচ্ছে আ্যাপল এ বছর ৫জি তে নিজেদের আওতাভুক্ত করবে না। সিএনইটির বিশ্লেষক সারা টিবকেন আইফোনের ফাইভজি লাইসেন্স পেতে দেরি হবে বলে মনে করছেন। ব্লুমবার্গের রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২০ সালের আগে আ্যাপল ৫জি ফোন আনছে না।

৩. ২০১৯ সালের আইফোনের পেছনে তিনটি ক্যামেরার অন্তর্ভুক্তি

আইফোন ১১ তে থাকতে পারে তিনটি ক্যামেরা; Image Source: CNET

ব্লুমবার্গের একটি নিবন্ধ প্রকাশ করেছে যে আইফোন ১১ এর পেছনে তিনটি ক্যামেরা থাকবে। ব্লুমবার্গের এই নিবন্ধটি মূলত Ice Universe নামে একটি টুইটার অ্যাকাউন্টের অনুসরণে করা হয়েছে।

৪. আইফোন ১১ থেকে অন্যান্য ডিভাইসে চার্জ দেয়া যাবে

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ১০ থেকে অন্য ডিভাইসে চার্জ দেয়া হচ্ছে; Image Source: CNET

প্রবীণ অ্যাপল বিশ্লেষক মিং-চি কুও থেকে একটি নোট বলছে যে, পরের প্রজন্মের আইফোন দ্বিপক্ষীয় চার্জিংকে সমর্থন করবে, যেমনটি 9to5Mac জানিয়েছে। এটা যদি সত্য হয় তাহলে এর মানে দাঁড়াচ্ছে আ্যাপল স্যামসাং এর নতুন এস-টেনকে অনুসরণ করবে।

৫. আইফোন ১১ তে ইউএসবি সি (USB C) ব্যবহৃত হবে

আইফোন ১১ নিয়ে সবচেয়ে বেশি সময় ধরে যে গুঞ্জনটি চলছে তা হলো, এতে ইউএসবি- সি ব্যবহার করা হবে। আর এ গুঞ্জনের পেছনে মূলত প্রভাবক হিসেবে কাজ করছে আইপ্যাড প্রস, ম্যাকবুক এয়ার এবং ম্যাকবুক প্রস-এ ইউএসবি-সি এর ব্যবহার।

৬. ওএলইডি (OLED) ডিসপ্লে

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের তথ্যানুযায়ী, আইফোন ১১ তে ওএলইডি ডিসপ্লে ব্যবহৃত হতে পারে।

৭. আইফোন ১১ তে থাকবে নতুন এ১৩ (A13) প্রসেসর

আইফোন এক্সএসে ব্যবহৃত হয়েছিল এ১২ বায়োনিক চিপ; Image Source: CNET

আইফোন এক্সএস এবং এক্সএস ম্যাক্সে এ১২ বায়োনিক (A12 Bionic) চিপ ব্যবহার করা হয়েছে, যা আইফোনের ক্ষমতা বাড়িয়ে দিয়েছে। গবেষক বেন থম্পসনের মতে, এটি এখনও পর্যন্ত যেকোনো এন্ড্রয়েড ডিভাইসের সাথে পাল্লা দিতে সক্ষম। কিন্তু আশা করা যাচ্ছে আইফোন ১১ তে আইপ্যাড প্রস এর এ১২এক্স ( A12X) প্রসেসর কিংবা আরো নতুন চিপ এ১৩ ( A13) ব্যবহৃত হবে।

৮. মূল্য বাড়ছে

সিএনইটির- প্রতিবেদক জেসিকা ডলকোর্ট এর বিশ্লেষণ থেকে জানা যায়, স্যামসাং বা আ্যাপলের প্রিমিয়াম স্মার্টফোনগুলোর দাম কমেনি, বরং বেড়েছে। সে হিসেবে আইফোন ১১ এর দাম বাড়ছে বলেই আমরা ধরে নিচ্ছি।

অনেক অনেক ফিচার আসুক বা শুধু ক্যামেরায় পরিবর্তন আসুক, দাম বাড়তি হোক অথবা কম, বিগত বছরগুলোর মতো এবারও যে প্রযুক্তি দুনিয়ার মানুষ আপেলের মতো আ্যাপল ফোন গিলতে যাচ্ছে, সে সম্ভাবনাকেই আমরা বড় করে দেখছি। আশা রাখছি, সকলের মন মাতানোর প্রত্যয় নিয়েই আসছে আইফোন ১১।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading…

0

Comments

0 comments